: প্রস্তাবিত

BDT 375,000 মূল্য পরিবর্তনশীল

Uttara

Mirza Tafsir
  • 21,000 কিলোমিটার

Yamaha R15 V2 2014 for sell # Color Red & White # Fully fresh untouched engine # Run 21000 km # All the papers are upto date # Registration : Dhaka Metro 27 # 2 keys, user manual with tool kit ...

BDT 165,000

যশোর জেলা

Jamal Ahamad
  • 450 কিলোমিটার

Yamaha বহু বছর ধরে ভাল মান রাখার জন্য পরিচিত এবং এই গাড়িটিও তার ব্যতিক্রম নয়। Manual ট্রান্সমিশন সিস্টেম, অনন্য ফিচার এবং 450 কিমি মাইলেজে বিশিষ্ট এই গাড়িটির মূল্য মাত্র ৳ 165000, যা কিনা বাজার...

BDT 125,000

যশোর জেলা

Jamal Ahamad
  • 458 কিলোমিটার

৳ 125000 এ সুলভ মূল্যে পাচ্ছেন Yamaha R15 v2 2016 r15 v2 for sell indin.bike.papers deya jabe গাড়িটি । 458 কিমি মাইলেজ এবং Manual ট্রান্সমিশন সিস্টেম সমৃদ্ধ সাশ্রয়ী গাড়িটি আপনি হাতছাড়া করতে চাবেন...

BDT 370,000 মূল্য পরিবর্তনশীল

Dhaka

Mr Aftab
  • 37 কিলোমিটার

Best engine condition.milage dei 37 r long a 50 per litre.DIGITAL NUMBER PLATE.Name transfer 100% possible. I'm the owner. Changes:- battery,chain spoket,brake shoe,spark plug.1month hoyese chan...

BDT 125,000

যশোর জেলা

Jamal Ahamad
  • 560 কিলোমিটার

Yamaha বহু বছর ধরে ভাল মান রাখার জন্য পরিচিত এবং এই গাড়িটিও তার ব্যতিক্রম নয়। Manual ট্রান্সমিশন সিস্টেম, অনন্য ফিচার এবং 560 কিমি মাইলেজে বিশিষ্ট এই গাড়িটির মূল্য মাত্র ৳ 125000, যা কিনা বাজার...

BDT 320,000 মূল্য পরিবর্তনশীল

Basabo

RAFIUL ALAM SAIKAT
  • 19,000 কিলোমিটার

This White & Red colored Yamaha R15 2013 Version 2.0 is a fantastic deal at just BDT320000. It comes with a Manual transmission system and has 19000km on the clock. This is a bargain you can't af...

BDT 130,000

যশোর জেলা

Jamal Ahamad
  • 450 কিলোমিটার

This Red Yamaha R15 v3 2017 r15 v2 for sell indin bike two and papers debo new bike is sure to sell quickly with a pricetag of BDT130000. With a Manual transmission system and a mileage of 450km ...

BDT 125,000

যশোর জেলা

Jamal Ahamad
  • 4,560 কিলোমিটার

বহু বছর ধরে Yamaha ভাল মান বজায় রাখার জন্য পরিচিত এবং এই গাড়িটি তারই একটি সেরা উদাহরণ। এই Yamaha R15 r15 v3 2017 R15 v3 for sell Fazzer v2, Fz Fi... Pulser 220, Pulser 200rs, Pulser 200ns, Pulse...

BDT 345,000 মূল্য পরিবর্তনশীল

ঢাকা

Fazla Rabby
  • 21,000 কিলোমিটার

Fully fresh, all papers r ok.single handling,Only Serious buyers are encouraged to contact seller for more information. Please don’t forget to mention carmudi when you contact the seller

ফলাফল হালনাগাদ করুন
বাংলাদেশে ইয়ামাহা আর-ফিফটিন মোটরসাইকেল বিক্রয়

বাংলাদেশে ইয়ামাহা আর-ফিফটিন মোটরসাইকেল বিক্রয়

ইন্ডিয়া ইয়ামাহা মটরস ২০০৮ সালে আর-ফিফটিন মোটরসাইকেল মার্কেটে বাজারজাত করে। এখনো এটা স্পোর্টস বাইক সেগমেন্টে একই নেমপ্লেট দিয়ে উৎপাদিত হয়। আর-ফিফটিন নির্মান করা হয়েছে ইয়ামাহার ওয়াইজেড এফ - আর১ এর ওপর ভিত্তি করে, আর এটার কনফিগারেশন আরও শক্তিশালী। এই বাইকটাকে সম্প্রতি প্রতিস্থাপন করেছে ইয়ামাহা আর-ফিফটিন ভার্সন ২, যেটা প্রথম বাইকটারই রিভাম্প করা ভার্সন। আর-ফিফটিন এ আর-১ এর ছাপ দেখা যায়. এটার ডিসাইন এমন যে তরুণ প্রজন্মের অদ্রেনালীন প্যাক করা অনুভূতির চাহিদা মেটাবে। বাংলাদেশে আর-ফিফটিন এর কোনো অফিসিয়াল সেল্স পয়েন্ট নেই, কিন্তু তাও আপনি লোকাল ডিলারশিপ থেকে বাইকটি কিনতে পারবেন।

ইয়ামাহা আর-ফিফটিন রিভিউ

ইয়ামাহা আর-ফিফটিন স্পেসিফিকেশন

ইয়ামাহা আর-ফিফটিন ভার্সন ১.০ চলে একটি ১৪৯.৮ সিসি লিকুইড কুল করা সিঙ্গেল সিলিন্ডার ৪ স্ট্রোক ইঞ্জিনের ওপর। এর সাথে আছে ৬ স্পিড ট্রান্সমিশন, এবং আপনাকে দেয় ৮৫০০ আরপিএম এ সর্বোচ্চ ১৬.৮ বিএইচপি পাওয়ার আর ১৫ নিউটন মিটার টর্ক, যাতে করে এটার সর্বোচ্চ গতি হয় প্রায় ১৪৫ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা।

আর-ফিফটিন এর ভার্সন ২.০ তেও আপনি একই রকমের স্পেসিফিকেশন পাবেন, আর তার সাথে থাকবে কিছু উন্নতি, যেমন ১৭ হর্সপাওয়ার আর ফুয়েল ইনজেকশন। ভার্সন ২.০ তে প্রধান পরিবর্তনগুলো হলো ইসিইউ ইঞ্জিন কন্ট্রোল ইউনিট, ড্রাইভট্রেন ইউনিট আর লং অ্যালুমিনিয়াম সুইংআর্ম।

ইয়ামাহা আর-ফিফটিন ডিজাইন

ইয়ামাহা আর-ফিফটিন বাইকটি ডিজাইন করা হয়েছে ধ্রুপদী স্পোর্টি রূপ এবং পারফর্মেন্সের উপর ভিত্তি করে। বাইকটি ইয়ামাহার চিরচারিত শ্রেষ্ঠ প্রযুক্তি থেকে করে তৈরি করা হয়েছে। এর ওজন ১৩.১ কেজি এবং মাটি থেকে উচ্চতা ১২৯০ মিমি হুইলবেস বাইকটিকে আদর্শ সেন্টার-অফ-গ্র্যাভিটি দিয়ে থাকে যার কারনে এটির গ্রিপ বেশ ভালো। এটির হ্যান্ডলিং চওড়া ফ্রন্ট এবং রিয়ার রেডিয়াল টায়ার দ্বারা নিয়ন্ত্রন করা হয়। আর প্যাসেঞ্জারের জন্য একটি আলাদা রিয়ার সিট লাগানো আছে যা কিনা আর-ফিফটিন এর ব্যক্তিত্বকে জোরদার করে। আর-ফিফটিন এর চেইন অ্যাডজাস্টমেন্ট ক্ষমতা সুপার স্পোর্টস বাইকদের মতন। আর এর এলইডি টেইল-লাইট ওয়াইজেডএফ-আর৬ থেকে নেয়া হয়েছে সাথে তার মিডল কাউল ডিজাইন যা কিনা এরোডাইনামিক্স বাড়িয়ে দেয়। ডিজাইনার ডাবল মাডগার্ড এবং ঊর্ধ্বমুখী থ্রাস্ট এক্সস্ট সিস্টেম আর-ফিফটিনএর আকর্ষণ অনেক বাড়িয়ে তোলে।

ইয়ামাহা আর-ফিফটিন ফিচার

ইয়ামাহা আর-ফিফটিন স্টাইল, আরাম, সুরক্ষা, এবং কার্যকারিতার মিলনের আশা দেখিয়েছে। এর সর্বশেষ ৫-স্পোক টাইপ হুইল বড় বড় ২২০মিমি রিয়ার ডিস্ক ব্রেকের সাথে সংযোগ করে ব্যালেন্স রাখতে সাহায্য করে। আর-ফিফটিন এর বিশিষ্ট কিছু দিক হোল এর ডাবল হর্ন, উন্নতমানের সাউন্ড, ডিজিটাল ফুয়েল গেজ, সেলফ-স্টার্ট, ডিজিটাল স্পিডোমিটার, স্টেপ আপ সিট, অ্যানালগ ট্যাকোমিটার, লো-ফুয়েল এবং লো-ব্যাটারি ইন্ডিকেটর এবং হাই অয়েল/টেম্পারেচার ইন্ডিকেটর।

বাংলাদেশে ইয়ামাহা আর-ফিফটিন মূল্য

ইয়ামাহা আর-ফিফটিন আপনি কোনো অফিসিয়াল ডিলারশিপ থেকে না কিনতে পারলেও লোকাল সোর্স থেকে ব্যবহৃত মডেলগুলো কিনতে পারবেন, আর এটার দাম পড়বে প্রায় ২,১৫,০০০ টাকা থেকে ৪,৫০,০০০ টাকার মধ্যে. এই দাম আবার নির্মান সালের ওপরেও নির্ভর করবে. নিচে বাংলাদেশে ইয়ামাহা আর১ এর গড় মূল্য তালিকা দেয়া রইলো। এই তালিকা কারমুডির লিস্টিং অনুযায়ী এবং সময়ের সাথে বদলাতে পারে। ব্যবহৃত বাইকের মূল্য  অবস্থা, মাইলেজ আর ফীচার্স এর ওপর নির্ভর করবে।

ইয়ামাহা আর-ফিফটিন ২০১৪ মূল্য : ব্যবহৃত- ৪,৫০,০০০ টাকা

ইয়ামাহা আর-ফিফটিন ২০১৩ মূল্য: ব্যবহৃত- ২,১০,০০০ টাকা

কেন কিনবেন ইয়ামাহা আর-ফিফটিন?

এটার মুল্য সাশ্রয়ী আর পারফরমেন্স অসাধারণ। এটার ফুয়েল এফিসিয়েন্সি - শহুরে এলাকায় ৩২ কিমি/লিটার আর মহাসড়কে ৪৩ কিমি/লিটার, যা যথেষ্ট প্রশংসনীয়। এর প্রতিযোগিতায় বাজারে আছে হোন্ডা সিবিআর-১৫০ আর টিভিএস অ্যাপাচি আরটিআর। আপনি ইয়ামাহা আর-ফিফটিন কিনবেন কারণ এর আছে:

  • অসাধারণ ডিসাইন ও স্টাইল
  • ভালো ফুয়েল এফিসিয়েন্সি
  • অসাধারণ পারফরমেন্স
  • দারুন রাইড কোয়ালিটি আর হ্যান্ডলিং

ইয়ামাহা আর-ফিফটিন সম্পর্কে মজার তথ্য

আর-ফিফটিন মোটরসাইকেলের এর প্রতিশ্রুতি অসাধারণ পাওয়ার প্যাক করা রাইড, আর মিডনাইট ব্লাক আর-ফিফটিন কে মাঝরাতে চালালে আপনার কোনো সুপারপাওয়ার এসে যাবে না. ব্যালান্স হারানোর রিস্ক সব সময়ই থাকে, তাই সব সময় হেলমেট পরে বাইক চালান, আর সুরক্ষিত থাকুন!