: প্রস্তাবিত

BDT 160,000 রোড মূল্য

বরিশাল

Tazidulislamrazu Tazidulislamrazu
  • 55,000 কিলোমিটার

100% Original Papers Digital Number Plate And Smart Card You Can Transfer Sounds Good Mb: 01617610620

BDT 60,000

ঢাকা

Taufique Ekram
  • 10,000 কিলোমিটার

URGENT SALE !!!!! MONEY NEEDED !!!! Fazer 2006 er model Serial : 23#### Condition : Not Bad ( Original engine ) Papers all ok Interested Buyer Please contact through inbox. If You dont like the...

BDT 75,000

যশোর জেলা

Jamal Ahamad
  • 450 কিলোমিটার

This Green Yamaha Fazer v2 2016 fazer v2 for sell all papers chopy indin bike is exceptional value at just BDT75000. The vehicle has a Manual transmission system and has traveled 450km to get to ...

BDT 190,000 মূল্য পরিবর্তনশীল

Wari

Irfan Ahmed
  • 17,000 কিলোমিটার

Yamaha fazer2012 Serial 21 30km/ltr 17k+ mileage Totally fresh Need urgent money that's why selling it.. Price slightly negotiable TIA.

BDT 165,000 মূল্য পরিবর্তনশীল

ঢাকা

Nazrulislambdp Nazrulislambdp
  • 33,000 কিলোমিটার

Good condition with digital name plate but fist owner stay on abroad.All manufacturers’ parts and original body color. Fresh interior and condition is very good. Only Serious buyers are encourage...

BDT 58,000 মূল্য পরিবর্তনশীল

ঢাকা

  • 1,500 কিলোমিটার

Engine performance is better than ever.Digital no. plate. Name transfer possible within 24 hr.I need money urgently,otherwise will never sell my bike.

BDT 215,000

ঢাকা

ASHIQ RAYHAN
  • 23,100 কিলোমিটার

Mainly used for daily commuting. 10 years registration, ending on 2024. Rode with ultra care. After 23,000+ km the bike is still in good condition. Went to servicing almost on a monthly basis, no...

ফলাফল হালনাগাদ করুন
বাংলাদেশে ইয়ামাহা ফেজার বিক্রয়

বাংলাদেশে ইয়ামাহা ফেজার বিক্রয়

বাংলাদেশে সকল ইয়ামাহা মডেলের মধ্যে ফেজার সবচেয়ে জনপ্রিয়। বাংলাদেশে ইয়ামাহা ফেজারের যেই ভার্সনটি উপলব্ধ সেটা নির্মান করে ইয়ামাহা মোটর কোম্পানির ভারতীয় সাবসিডিয়ারি। এই মডেলটি অনুপ্রেরণা নেওয়া হয় গ্লোবাল ফেজার সিরিজ থেকে যেটা স্পোর্টস টুরিং এবং চমৎকার চেহারার জন্য বিখ্যাত। ইয়ামাহা ভাষায়, এটার ট্রিপল মাচো ডিসাইন কনসেপ্ট এর কারণে এই বাইকতার বাইকপ্রেমীদের মাঝে আলোড়ন তোলে। এই মডেলটা আরম্ভ হয় ২০০৯ সালে আর এটার সাথে থাকে এফজেড আর অন্যান্য মডেলের মত আপগ্রেড করা ফীচার্স থাকে। এই সময়টাতে ফেজার ফী নামক আরেকটি ভ্যারিয়েন্ট বাজারজাত করা হয়।  তরুণ প্রজন্ম এই বাইকটা অত্যন্ত বেশি পছন্দ করে আর ঢাকা এবং বাংলাদেশের অন্যান্য শহরের রাস্তায় এটা অহরহ দেখা যায়।

ইয়ামাহা ফেজার রিভিউ

ইয়ামাহা ফেজার স্পেসিফিকেশন

এই কমিউটার বাইকটার আছে শক্তিশালী ১৫৩সিসি এয়ার-কূল ইঞ্জিন। এটার ২ ভাল্ভ, সিঙ্গেল সিলিন্ডার, ৪ স্ট্রোক এসওএইচসি ইঞ্জিন সর্বোচ্চ ১৩.৮ বিএইচপি পাওয়ার উৎপাদন করতে পারে ৭৫০০ আরপিএম এ। এটার সর্বোচ্চ টর্ক ৬০০০ আরপিএম এ ১৩.৬ নিউটন মিটার। সাথে আছে ৫ স্পিড ট্রান্সমিশন। ইয়ামাহা বলে যে এই মোটরসাইকেলটা ১৩২ কিলোমিটার/ঘন্টা গতি পর্যন্ত পৌছাতে পারে, কিন্তু সত্যিকারের রাস্তায় এটার গড় গতি হয় প্রায় ১১৮ কিলোমিটার/ঘন্টা। মাত্র ৫.৫ সেকন্ডে এটা ০ থেকে ৬০ কিলোমিটার/ঘন্টা গতিতে যেতে পারে। এই বাইকটার ফুয়েল এফিসিয়েন্সি খুব একটা উল্লেখযোগ্য নয়। শহুরে এলাকায় এটার ৩৬ কিলোমিটার/লিটার যেতেই হিমশিম খেয়ে যায়, আর মহাসড়ক অবস্থায় এটা প্রায় ৪৫ কিলোমিটার/লিটার চলে। গড়ে, ইয়ামাহা ফেজারের মাইলেজ প্রায় ৩৮ কিলোমিটার/লিটার যেটা প্রতিদ্বন্দ্বী ব্রান্ডগুলোর চেয়ে, যেমন বাজাজ পালসার বা টিভিএস অ্যাপাচি আরটিআর, অনেক কম। এই বাইকতার আছে ২৬৭ মিলিমিটার হাইড্রলিক ডিস্ক ব্রেক সামনের অংশে আর পেছনের অংশে  আছে ড্রাম ব্রেক ।

ইয়ামাহা ফেজার ডিসাইন

ফেজারের ডিসাইন অবশ্য প্রতিদ্বন্দ্বীদের চেয়ে অনেক উন্নত। সামনের কাউলটা ডুয়াল টোন এর এরোডাইনামিক শেপ। মোটরসাইকেলতার সামনে স্টাইলিশ কার্বন প্যাটার্ন আর উইন্ড প্রটেক্টর আছে যা বাইকটার সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে, আর বাতাসের বাধা কমিয়ে দেয়। স্পোর্টি হেডলাইট দুটো রাতের বেলা ঠিক মত দেখতে সাহায্য করে। বাইকটাতে আরও আছে পুরোপুরি ডিজিটাল স্পিড কনসোল যেটার সাথে আছে ফুল এলসিডি ডিসপ্লে, ট্যাকোমিটার, ট্রিপ মিটার, আর ইনডিকেটর লাইট। ফেজারের লম্বা সীট আপনাকে দেয় আরও আরামদায়ক যাত্রা, ফেজার উপলব্ধ ৩টি রঙে: রেভিন রেড, উইল্ডারনেস ব্ল্যাক, আর টেরেইন ওয়াইট।

ইয়ামাহা ফেজার ফীচার্স

ইয়ামাহা ফেজারের আছে মন-ক্রস সাসপেনশন যেটা ৭ বার এডজাস্ট করা যায়। চাকা উপলব্ধ ১৭ ইঞ্চি, আর ৫ স্পোকের। পেছনের চওড়া ফেন্ডারটা চাকাকে কাদা আর কাদাপানির ছিটা থেকে রক্ষা করে। বাইকটাতে মিনিমাল স্টোরেজ স্পেসও আছে। সীট এর নিচে যদিও কোন স্টোরেজের জায়গা নেই, আর ফাইবার মেড ট্যাঙ্ক এর কারণে ম্যাগনেটিক ট্যাঙ্ক ব্যাগটা ব্যবহারযোগ্য না।

বাংলাদেশে ইয়ামাহা ফেজারের মূল্য

বাংলাদেশে ইয়ামাহা মোটরসাইকেল ডিস্ট্রিবিউট করে কর্ণফুলী ইন্ডাস্ট্রিস লিমিটেড। আগে তারা সব মোটরসাইকেল সরাসরি জাপান থেকে আমদানি করত, কিন্তু গত যুগ ধরে তারা ইয়ামাহা মোটর কোম্পানির ভারতীয় সাবসিডিয়ারি থেকে মোটরসাইকেল রপ্তানি করছে। ইয়ামাহা ফেজার সব বড় শহরেই উপলব্ধ, আর বাংলাদেশে অন্যান্য মোটরসাইকেল এর তুলনায় এটার দাম একটু বেশি। ব্র্যান্ড নিউ ফেজারের দাম পড়ে প্রায় ২৬০,০০০ টাটা, আর পুরনো ফেজারের গড় দাম নির্ভর করবে অবস্থা আর নির্মাণ সালের ওপর।

ইয়ামাহা ফেজার ২০১৫ মূল্য: ব্যবহৃত - ২,৬৫,০০০ টাকা; নতুন - ২,৭০,০০০ টাকা

ইয়ামাহা ফেজার ২০১৪ মূল্য: ব্যবহৃত - ২,৩০,০০০ টাকা; নতুন- ২,৬০,০০০ টাকা

কেন কিনবেন ইয়ামাহা ফেজার?

ইয়ামাহা প্রথম ভারতীয় উপমহাদেশে ৬০% আসপেক্ট রেশিও সহ রেডিয়াল টায়ার আরম্ভ করে। ফেজারের ২টি চাকায় টিউববিহীন, যার কারণে টায়ার ফ্লাট হয়ে যাওয়ার আশংকা অনেক কম। বাইকটা আপনাকে দেয় কোমল ও আরামদায়ক যাত্রা। মোটরসাইকেলটা অত্যন্ত স্টাইলিশ হলেও এটার দাম আর ফুয়েল এফিসিয়েন্সি এই দেশের মধ্যবিত্ত মানুষদের পছন্দ নাও হতে পারে।