: প্রস্তাবিত
সঠিক ফলাফল পাওয়া প্রস্তাবিত বিকল্প
ফলাফল হালনাগাদ করুন
বাংলাদেশে টিভিএস ফিনিক্স বিক্রয়

বাংলাদেশে টিভিএস ফিনিক্স বিক্রয়

টিভিএস এর দাবি যে ফিনিক্স ভারতের প্রথম প্রিমিয়াম শ্রেনীর এক্জেকিউটিভ মোটরসাইকেল। এই ১২৫ সিসি মোটরসাইকেল নিমেষেই মোটরসাইকেল প্রেমীদের নজর কেড়ে নেয়। ভারতে এটা প্রথম বাজারজাত হয় ২০১৩ সালে। এটাতে আছে নতুন প্রযুক্তির সাথে হাতে গড়া স্টাইলের সমাহার। এই মডেল বাংলাদেশের মোটরসাইকেল বাজারে আসে বাজাজ ডিস্কভার ১২৫, হিরো গ্ল্যামার, হোন্ডা শাইন, হিরো ইগনাইটর আর ইয়ামাহা গ্ল্যাডিয়েটর এর প্রতিযোগী হিসেবে। টিভিএস এর ভিক্টর জিএলএক্স এর এই মডেলের সাথে বেশ কিছু মিল রয়েছে, কিন্তু আকর্ষনীয় ডিসাইন আর উন্নত প্রযুক্তির দিক থেকে ফিনিক্স এগিয়ে আছে।

টিভিএস ফিনিক্স রিভিউ

টিভিএস ফিনিক্স স্পেসিফিকেশন

এই বাইকটির আছে মন-সিলিন্ডার, ১২৪.৫ সিসি এয়ার কুল্ড ৪ স্ট্রোক ইঞ্জিন যেটার সর্বোচ্চ পাওয়ার আউটপুট ৮০০০ আরপিএম এ ১০.৮ বিএইচপি। এটার সর্বোচ্চ টর্ক ৬০০০ আরপিএম এ ১০.৮ নিউটন মিটার. এটাতে আছে চার স্পীফ ম্যানুয়াল গিয়ার্বক্স। এটার পারফরমেন্স অনেকটা এটার পূর্বপুরুষ টিভিএস ফ্লেম এর মতই। এই বাইকের সর্বোচ্চ গতি ১১০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা আর এটা ৬ সেকন্ডে ০ থেকে ৬০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা বেগে পৌছাতে পারে। তাতে করেই বোঝা যায় যে এই বাইকটা নিজের শ্রেনীর অন্যান্য এন্ট্রি লেভেল মোটরসাইকেল এর চেয়ে অনেক উন্নত। এটার ফুয়েল এফিসিয়েন্সিও মন্দ না। শহুরে এলাকায় টিভিএস ফিনিক্সের মাইলেজ ৪৫ কিলোমিটার প্রতি লিটার আর মহাসরকে ৬৭ কিলোমিটার প্রতি লিটার। তাহলে গড় মাইলেজ হয় ৫৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার প্রতি লিটার। এটার ব্রেক সিস্টেম হচ্ছে রটো পেটাল ডিস্ক ব্রেক।

টিভিএস ফিনিক্স ডিসাইন

টিভিএস ফিনিক্স এটার কালো এলয় চাকা, ইঞ্জিন আর মাফলার, সবকিছুতেই কালো থিম ব্যবহার করে। বাইকটি উপলব্ধ লাল, সবুজ আর ধুসর রঙে। এই বাইকের সবচেয়ে আকর্ষনীয় ফীচার হচ্ছে এটার স্মার্ট আর স্টাইলিশ হেডলাইট আর সাথে অন্তর্ভুক্ত এলইডি পাইলট ল্যাম্প। এই প্রথম যে এই শ্রেনীর বাইকের মধ্যে এই অপশনটা আছে আর রাতের বেলা এটাকে খুবই সুন্দর দেখায়। এটার টেইল ল্যাম্পে আছে পেটাল বৈশিষ্ট যেটা এই শ্রেনীর মোটরসাইকেলের অসাধারন একটি ফীচার। সামনের ফেন্ডারটি অনেক শার্প, যেটা বাইকটাকে একটা এগ্রেসিভ লুক দেয়। এটার সফ্ট টাচ গিয়ার্বক্স আর টেক্সচার্ড গ্রিপ আপনাকে দেয় প্রিমিয়াম শ্রেনীর অভিজ্ঞতা, আর এটার পুরোপুরি ডিজিটাল স্পিডমিটার বাইকটাকে দেখতে আরও আকর্ষনীয় করে তোলে। বাইকটি উপলব্ধ ৫টি ভিন্ন রঙে, যেগুলো হচ্ছে সবুজ, ধুসর, লাল, কালো-লাল, আর কালো-রুপালি।

টিভিএস ফিনিক্স ফীচার্স

টিভিএস ফিনিক্স এর সিরিজ স্প্রিং সাসপেনশন দিয়ে নিশ্চিত করে আরাম। এটা সাহায্য করে কুশনিং, রোড হ্যান্ডলিং ক্ষমতা আর আপনার চালানোর মজা দিগুন করে দিতে। এটার ফুয়েল ট্যাঙ্ক এর ধারণ ক্ষমতা ১২ লিটার আর রিসার্ভে ২ লিটার।  

বাংলাদেশে টিভিএস ফিনিক্স এর মূল্য

টিভিএস ফিনিক্স বাংলাদেশের বিভিন্ন অংশে ২০১৩ সাল থেকে পাওয়া যায়। টিভিএস বাংলাদেশ সারা দেশে অনেক ডিলার নিয়োগ করেছে যেন আপনি পেতে পারেন আরও ভালো সেবা আর সুবিধা। টিভিএস ফিনিক্স ক্রয় করলে আপনি পাচ্ছেন ২ বছর বা ৩০,০০০ কিলোমিটারের ওয়ারেন্টি।

তুলনামূলকভাবে নতুন মডেল হওয়ার কারণে, বাজারে ব্যবহৃত টিভিএস ফিনিক্স খুবই কম পাওয়া যায়। বেশিরভাগ বাইকই নতুন আর এগুলোর দাম প্রায় ১,৬০,০০০ টাকা। নিচে বাংলাদেশের বাজারের উপলব্ধ টিভিএস ফিনিক্স এর মূল্য তালিকা দেয়া রইলো:

টিভিএস ফিনিক্স ২০১৫ মূল্য: নতুন- ১,৬০,০০০ টাকা

টিভিএস ফিনিক্স ২০১৪ মূল্য: নতুন- ১,৬০,০০০ টাকা, নতুন- ১,৫০,০০০ টাকা

কেন কিনবেন টিভিএস ফিনিক্স?

এই মোটরসাইকেলটির সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে যে এটার ডিসাইনার প্রায় ৩ বছর কাজ করেছে এটাকে ডিসাইন করতে আর এই বাইকটি প্রযুক্তি আর লোকবল এর অনন্য কম্বিনেশন। ফিনিক্স টিভিএস এর অন্যান্য বাইকের তুলনায় একটু কম জনপ্রিয় হলেও এটা এটার মূল্যের তুলনায় অনেক অসাধারণ একটি বাইক। এটার ইঞ্জিন অনেক শক্তিশালী আর এটার আছে কিচ্ছু একক ফীচার্স আর উন্নত ফুয়েল এফিসিয়েন্সি।