: প্রস্তাবিত

BDT 3,370,000 মূল্য পরিবর্তনশীল

ঢাকা

HILLTEX'S AUTO
  • 2,800 কিলোমিটার

TOYOTA HIACE SUPER GL,PUSH START,MODEL-2016,BLACK COLOR,CC-2000,TV,NAVI,BACK CAMERA,SOFT A/C,DUBAL PROJECTION HID HEAD LIGHT,FOG LAMPS,BRAND NEW CONDITION,FULL OPTION. More Info: 01612763910

BDT 1,240,000 ড্রাইভ আও্যে

Dhaka

Saifur Trading
  • 33,000 কিলোমিটার

All auto option, GL with Beige Interior Leather Sit,Crystal Headlamps,Retract winker Mirror,Central lock, Stylish Panel & Power steering,Beige Interior Revolbing Sit, 5 Door, All original Manufa...

ফলাফল হালনাগাদ করুন
বাংলাদেশে টয়োটা রিজাসএইস বিক্রয়

বাংলাদেশে টয়োটা রিজাসএইস বিক্রয়

টয়োটা রিজাসএইস হচ্ছে ১৯৯৯ সালে জাপানি গাড়িনির্মাতা টয়োটা কর্পোরেশনের তৈরিকৃত টয়োটা রিজাস হাইএস এবং রিজাস টুরিং হাইএসএর নতুন নামে ছাড়া মডেল। টয়োটা রিজাসএইসএর প্রথম প্রজন্ম ১৯৯৯ সাল থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত বিক্রিত হয়, এবং এর দ্বিতীয় ও বর্তমান প্রজন্ম ২০০৪ সাল থেকে সরবরাহ করা হচ্ছে। এ পর্যন্ত দ্বিতীয় প্রজন্মের টয়োটা রিজাসএইসএর তিনবার চেহারা পাল্টানো হয়েছে। যদিও রিজাসএইস তৈরি করা হয়েছিল জাপানি বাজারের জন্যে, এটি বিশ্বের নানান দেশে আমদানি করা হয়ে থাকে। বাংলাদেশের বাণিজ্যিক ভ্যান ব্যবহারকারীদের মধ্যে রিজাসএইস বেশ জনপ্রিয়। নাভানা লিমিটেড  টয়োটা রিজাসএইস বিক্রি করেনা বর্তমানে, কিন্তু টয়োটা হাইএসকে যাত্রীবাহী ভ্যান হিসেবে বাজারজাত করছে। যদিও রি-কন্ডিশন্ড এবং ব্যবহৃত টয়োটা রিজাসএইস সুলভ মূল্যে সহজেই পাওয়া যায়।

টয়োটা রিজাসএইস রিভিউ

টয়োটা রিজাসএইস ইঞ্জিন স্পেসিফিকেশন

টয়োটা রিজাসএইস দুটো মডেলে পাওয়া যায় – সুপার জিএল এবং ডিএক্স জিএল। দুটোই টু-হুইল ড্রাইভ এবং ফোর-হুইল ড্রাইভে পাওয়া যায়। টয়োটা হাইএসএর মতন না হয়ে রিজাসএইস শুধুমাত্র ভ্যান মডেলেই পাওয়া যায়। প্রতিটি মডেলকেই একটি ২.৭ লিটার ডিওএইচসি ভিভিটি-আই ইঞ্জিন ১৪২ হর্সপাওয়ার এবং ২২১ টর্ক উৎপাদন করে চালায়। ইঞ্জিনটির সাথে একটি ৪-স্পিড অটোম্যাটিক ট্রান্সমিশন যুক্ত যা ফ্লেক্স লক-আপ এবং আপহিল স্লোপ কন্ট্রোল সহ আসে। জাপানের ভূমি ও পরিকাঠামো মন্ত্রনালয় থেকে রিজাসএইসকে স্বল্প নির্গমনকারী গাড়ি হিসেবে রেটিং দেওয়া হয়েছে।

টয়োটা রিজাসএইস বহিরাবরণ

টয়োটা রিজাসএইসএর অটো-লেভেলিং সংবদিত লো-বীম এলইডি হেডল্যাম্প আছে যা বিপরীত দিক থেকে আসা গাড়ির চালকের চোখ ঝলসে দেবেনা। হেডল্যাম্পগুলো উজ্জ্বলতার উপর নির্ভর করে স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু কিংবা বন্ধ হয়। সামনের বাম্পারে ফগলাইট লাগানো আছে যেন খারাপ আবহাওয়ার মধ্যেও দৃষ্টি অক্ষুণ্ণ থাকে। পেছনের  কম্বিনেশন ল্যাম্প এবং ফগলাইটগুলো চৌকাকৃতির এবং পেছন থেকে আসা যানবাহনদের স্পষ্ট করে তোলে। এর সঙ্গে আরো আছে ইলেকট্রিক রি-ট্র্যাক্টেবল রিমোট কন্ট্রোল ডোর মিরর এবং লেফট সাইড স্ট্রেট মিরর। ভ্যানটি আরো আসে একটি এলইডি হাই মাউন্ট স্টপ ল্যাম্প, রিয়ার আন্ডার মিরর, ইন্টারমিটেন্ট রিয়ার ওয়াইপার এবং রিয়ার উইন্ডো ডিফগার সহ।    

বিভিন্ন রঙে গাড়িটি পাওয়া যায় বাজারে। সাদা, নীল, কালো, সিলভার এবং কাস্টোমারের পছন্দসই কালার কাস্টোমাইজ করে বেছে নিয়ে যাওয়ার ক্ষমতাও ক্রেতার হাতে।

টয়োটা রিজাসএইস অন্দর

টয়োটা রিজাসএইসের অন্দর ডিজাইন করা হয়েছে আরোহীদের আরাম এবং সুবিধার কথা চিন্তা করে। সামনের সিটগুলো বিশেষভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যেন দীর্ঘযাত্রায় ক্লান্তিবোধ না হয়। রিজাসএইসের অন্দরের বিশিষ্ট আরো কিছূ দিক হচ্ছে গিয়ে এর এলইডি ডাউনলাইট, সেন্টার কনসোল, পাওয়ার উইন্ডো, ফ্রন্ট ডোর বটল হোল্ডার, মাল্টি-ইউজ সিট ব্যাক কনসোল, রিয়ার কুলার, স্লাইডিং ডোর বটল হোল্ডার, ফোল্ডিং রিয়ার সিট, রিয়ার ও ব্যাক ডোর রুম ল্যাম্প, ইন্টেরিয়র লাইট অটো-অফ সিস্টেম, রিয়ার হিটার, রিয়ার কোয়ার্টার ট্রিম পকেট, ব্যাক ডোর ইনসাইড হ্যান্ডেল এবং টাই-ডাউন হুক।

যদিও এই গাড়িগুলো এমভিপি মিনিভ্যানের কনসেপ্টের উপর ভিত্তি করে তৈরি, রিজাসএইসের নতুন মডেলগুলো গাড়ির সাথে ক্যাবের ডিজাইনও অন্তর্ভুক্ত করেছে। এই ভিন্নতা সামনের সিটের প্যাসেঞ্জারকে ফ্রন্ট এক্সেলে বসতে দেয়। বডি ডিজাইনের কথা বলতে গেলে এই গাড়িটির একটি তুলনামূলক লম্বা আকার আছে এবং সামনে দিয়ে ফ্ল্যাট। এটির পাঁচটি দরজা আছে এবং ৮-১২টি সিট পাওয়া যায় মডেলের উপর নির্ভর করে। গাড়িটির আছে ২৫৭০মিমি হুইলবেস সহ চারটি এলয় হুইল। এটি ফ্রন্ট-হুইল ড্রাইভ করার সুবিধা প্রদান করে।

এর প্রশস্ত অন্দর এবং বিশাল লাগেজ স্পেস একে অন্যান্য মিনিভ্যান থেকে আলাদা করে তোলে। এই বিরাট অন্দরের কারনে গাড়িটি কর্পোরেট অফিস এবং বড় পরিবারদের কাছে একে জনপ্রিয় করে তুলেছে।

টয়োটা রিজাসএইস নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য

টয়োটা রিজাসএইস অত্যাধুনিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা যেমন এন্টি-লক ব্রেকিং সিস্টেম, ব্রেক এসিস্ট এবং ব্রেক ওভাররাইড সিস্টেম ব্যবহার করে। ব্রেক ওভাররাইড সিস্টেম ব্রেককে অগ্রাধিকার দেবে যদি এক্সেলেরেটরের সঙ্গে চাপা হয়। ক্র্যাশ সেফটির ক্ষেত্রে পেডেস্ট্রিয়ান ইনজুরি রিডাকশন বডি, স্টিয়ারিং হুইল এবং ব্রেক পেডাল রিসেশন রিডাকশন মেকানিজম, ড্রাইভের এবং ফ্রন্ট প্যাসেঞ্জার এসআরএস এয়ারব্যাগ, প্রি-টেনশন সহ ফ্রন্ট সিটবেল্ট, হুইপল্যাশ ইনজুরি রিডাকশন সিট এবং রিয়ার সিট বেল্ট আছে এই গাড়িটিতে। এন্টি-থেফট সিস্টেম যা কিনা ইঞ্জিন বন্ধ করে দেয় তা চুরি এবং অবৈধ ব্যবহার থেকে গাড়িটিকে রক্ষা করে। অটো-ডিমিং ব্যাক মনিটর এবং রিয়ারভিউ মিরর ড্রাইভারকে গাড়ি পেছাতে সাহায্য করে।

টয়োটা রেজিয়াসএইস মূল্য

মডেল, অবস্থা আর নির্মান সালের ওপর নির্ভর করে আপনি সহজেই ব্যবহৃত বা রিকন্ডিশন করা রেজিয়াসএইস পেতে পারেন ১,০৫০,০০০ টাকা থেকে ৩,১০০,০০০ টাকার মধ্যে | কারমুডির লিস্ট অনুযায়ী টয়োটা রেজিয়াসএইসের মুল্য নিচে দেয়া রইলো:

টয়োটা রেজিয়াসএইস ২০১১ মূল্য: রিকন্ডিশন করা - ২৬,০০,০০০ টাকা

টয়োটা রেজিয়াসএইস ২০১০ মূল্য: রিকন্ডিশন করা - ২০,০০,০০০ টাকা

টয়োটা রেজিয়াসএইস ২০০৯ মূল্য: রিকন্ডিশন করা - ১৮,০০,০০০ থেকে ২৪,০০,০০০ টাকা

কেন কিনবেন টয়োটা রেজিয়াসএইস ?

টয়োটা রেজিয়াসএইস অত্যন্ত নির্ভরযোগ্য একটি বাহন, যার সাথে আপনি পাচ্ছে অত্যাধুনিক সেফটি আর ব্যবহারিক ফীচার্স। এটা আপনি কমার্শিয়াল বা ব্যক্তিগত গাড়ি হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন | রেজিয়াসএইসের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বীদের মধ্যে আছে: টয়োটা হাইএস, নোয়াহ, ভক্সি, আর নিসান কারাভান |