: প্রস্তাবিত

BDT 880,000 মূল্য পরিবর্তনশীল

Banani

A & A Car Center
  • 32,648 কিলোমিটার

Toyota IQ Model: 2009. Registration: 2014 Serial: 11 Engine: VVT-i. Engine capacity: 1000 Transmission: Auto. Color: Blue Fuel System: Octane. Options:Super Fresh Condition Fully Auto an...

BDT 980,000 মূল্য পরিবর্তনশীল

Gulshan Model Town

JM CAR CENTRE
  • 26,000 কিলোমিটার

Toyota IQ-Model: 2010,Reg: 2017,Serial: 11,Engine capacity: 1000cc,Millage:30000, Engine: VVT-i,Transmission: Automatic,Color: Cherry Black ,Fuel System: Octane. Options: Fully Auto and loaded,...

ফলাফল হালনাগাদ করুন
বাংলাদেশে টয়োটা আই কিউ বিক্রয়

বাংলাদেশে টয়োটা আই কিউ বিক্রয়

টয়োটা  আই কিউ  টয়োটা  মটরস কো . এর নির্মিত একটি কেইজিদোশা গাড়ি। কেইজিদোশা গাড়ি বলতে বোঝায় সেই গাড়িগুলো যেগুলো জাপানের সব পরিবেশগত  আর কার্বন  নির্গমন  রীতি  মেনে চলে। আইকিউ একটি অত্যন্ত অল্পবয়সী সাবকম্প্যাক্ট  গাড়ি , যেটার উৎপাদন শুরু হয় ২০০৮ সালে। গাড়িটা জনসাধারনকে দেখানো হয় ২০০৮ সালের ডিসেম্বরে, বার্লিনে অনুষ্ঠিত ইউরোপীয় মোটর গাড়তপাদতে। আই কিউ বিক্রয় শুরু হয় ২০০৯ সালের  প্রথম  দিকে । জাপানে আর ইউরোপের বাজারে আসার সাথে সাথে গাড়িটা অনেক সাফল্য অর্জন করে, আর বেশ প্রশংসা আর কয়েকটা পুরস্কার জিতে নেয়  বিভিন্ন  মোটর  ম্যাগাজিন , জার্নাল আর ব্লগ থেকে। আই কিউ নামটা উল্লেখযোগ্য কারন এটা মনে করিয়ে দেয় একই রকম ভাবে ডিসাইন করা গাড়ি “স্মার্ট” এর কথা। এক ভাবে বলা হচ্ছে যে আই কিউ স্মার্ট থেকে ভালো ।   

টয়োটা আই কিউ রিভিউ

টয়োটা আই কিউর পারফরমেন্স আর স্পেসিফিকেশন

টয়োটা আই কিউ একটি অত্যন্ত ফুয়েল  এফিসিয়েন্ট  গাড়ি যেটার সর্বোচ্চ গতি ১২৫ কিলোমিটার / ঘন্টা । একই সাথে, গাড়িটা বেশ সাশ্রয়ী । আই কিউ নির্মানের দ্বারা টয়োটা নিজেকে গাড়ির বাজারে কম্প্যাক্ট  ২ দরজার  শহুরে গাড়ি  নির্মাতা হিসেবে তুলে ধরলো। আই কিউ ৩ দরজার  হ্যাচবাকও   অফার করে, কিন্তু সেটা সেডান মডেলে উপলব্ধ না।

  • এটার ৩টি ভিন্ন আকারের সিলিন্ডার আছে।
  • পেট্রল মডেল গুলোর  ইঞ্জিন  ১.০ লিটার  আর ১.৩ লিটারের , আর ডিজেল  ইঞ্জিন  শুধু ১.৪ লিটারের ।
  • সামনের চাকার ড্রাইভ।
  • ৫ স্পিড ম্যানুয়াল  আর ৬ স্পিড অটোমেটিক  ট্রান্সমিশন

টয়োটা আই কিউর ফুয়েল  ইকোনমি  খুব ভালো : ৪.৩ লিটার /১০০ কিমি । এটার আর টয়োটা  আয়গো - এর একই ইঞ্জিন । আই কিউর পরের মডেলগুলো আধুনিক  চাবি-হীন  স্টার্ট  আর স্টপ সিস্টেমের  সাথে উপলব্ধ।

টয়োটা আই কিউর ডিসাইন

টয়োটা আই কিউ প্রথমে ডিসাইন করে ফ্রান্স এর নিস -এ অবস্থিত “টয়োটা  ইউরোপিয়ান   ডিসাইন  এন্ড ডেভেলপমেন্ট” সেন্টার। টয়োটা আই কিউর একটি স্বতন্ত্র ফীচার হচ্ছে যে সামনের যাত্রী চালক থেকে একটু সামনে বসে, যেন পেছনের ৩য় আর ৪র্থ যাত্রীর পা রাখবার  যথেষ্ট  জায়গা পায়। ড্র্যাগ ফোর্স কমানোর জন্য এটার আছে একটি অগভীর  আন্ডার  ফ্লোর  ফুয়েল  ট্যাঁক । সীট ডিসাইন আরও স্লিম করা হয়েছে, যেন যাত্রীদের  জন্য  গাড়িটা  আরও প্রশস্ত  হয় ।

টয়োটা আই কিউর অন্যতম ফীচার্স

টয়োটা আই কিউর অন্যতম ফীচার অবস্হি এটার শীতাতাপ  নিয়ন্ত্রণ  ব্যবস্থা । এই আকারের একটি গাড়ির মধ্যে এসি থাকা আসলেই একটি বিস্ময়কর ব্যাপার, কারণ এটা অনেক জায়গা নিয়ে নেয়, আর ফুয়েল এফিসিয়েন্সি কমিয়ে দেয়। কিন্তু টয়োটা সেটাও ডিসাইন বা ফুয়েল  এফিসিয়েন্সি  কম্প্রমাইজ  না করে একটা সুপার স্লিম এসি গাড়িতে বসিয়ে দিয়েছে।

বাংলাদেশে টয়োটা আই কিউর উপলব্ধি আর মুল্য

নাভানা আর অন্যান্য গাড়ি ডিলারদের কাছে আপনি সহজেই টয়োটা আই কিউ পেয়ে যাবেন। টয়োটা ব্র্যান্ড এর সাথে আপনি যা লক্ষণীয়তা আশা করেন, তার সবই আপনি আই কিউতে পাবেন। মডেল, মাইলেজ, ভেতরের আর বাহিরের অবস্থার ওপর নির্ভর করে টয়োটা  আই কিউর  দাম  পড়তে  পারে  ১৪,০০,০০০ থেকে  ১৬,৫০,০০০ টাকা । নিচে কারমুডির লিস্টিং অনুযায়ী নির্মান সালের ওপর নির্ভর করে টয়োটা আই কিউ মুল্য দেয়া রইলো:

টয়োটা  আই কিউ ২০০৯ মুল্য : রিকন্ডিশন করা - ১৩,৫০,০০০ থেকে ১৪,২০,০০০ টাকা

টয়োটা  আই কিউ ২০০৮ মুল্য : ব্যবহৃত - ১৪,৫০,০০০ থেকে ১৬,৫০,০০০ টাকা

কেন কিনবেন টয়োটা আই কিউ?

২০০৮ সালে টয়োটা আই কিউ সবচেয়ে সেরা জাপানী গাড়ির খেতাব জিতে নেয়। সহজেই এটাতে ৪ জন মানুষ বসতে পারে , কিন্তু একই সময়ে গাড়িটা খুবই  ফুয়েল  এফিসিয়েন্ট । ইউরোপের  মূল শহরগুলোতে , যেখানে পার্কিং এর জায়গা পাওয়া খুব কঠিন, সেখানে এটাকে “রাইড  শেয়ারিং  কার” হিসেবে প্রমোট করা হয়। টয়োটা মটরস আই কিউর একটি বৈদ্যুতিক  মডেলের  ওপর কাজ করছে। এটা খুবই ব্যবহারিক একটা সিদ্ধান্ত, কারণ আরও বেশি বেশি শহর গ্রিড এর সাথে সংযুক্ত হচ্ছে আর চার্জিং পয়েন্ট আর ইউনিটের উপস্থিতি ক্রমশই বৃদ্ধি পাচ্ছে। যদিও আপাতত বৈদ্যুতিক গাড়ি বাংলাদেশের জন্য এখন পর্যন্ত উপযুক্ত না, ছোট বাংলাদেশী  পরিবারের  জন্য  টয়োটা  আই কিউ খুবই  নির্ভরযোগ্য  আর ব্যবহারিক  একটা গাড়ি। টয়োটা আই কিউ কেনার কথা ভাবতে পারেন কারণ এর আছে

  • স্মার্ট লুক
  • ফুয়েল এফিসিয়েন্সি
  • সহজ পার্কিং