: প্রস্তাবিত
সঠিক ফলাফল পাওয়া প্রস্তাবিত বিকল্প
ফলাফল হালনাগাদ করুন
বাংলাদেশে টাটা ইন্ডিগো বিক্রয়

বাংলাদেশে টাটা ইন্ডিগো বিক্রয়

টাটা ইন্ডিগো হচ্ছে ইন্ডিয়ান গাড়িনির্মাতা টাটা মোটরস এর তৈরি ২০০২ সালে বাজারজাত করা একটি সাবকম্প্যাক্ট সেডান গাড়ি। টাটা ইন্ডিগোর প্রথম প্রজন্ম ছিল আরেকটি সাবকম্প্যাক্ট টাটা ইন্ডিকার উপর ভিত্তি করে। যদিও দুটো গাড়ির ডিজাইন এক রকম ছিল, টাটা ইন্ডিগো তার ক্রেতাদের টার্বোচার্জড ডিজেল কিংবা পেট্রল ইঞ্জিন থেকে বেছে নেওয়ার সুবিধা দেয়। ২০০৬ সালে গাড়িটি রূপ পরিবর্তন করে এবং এখন তার ফলে ইন্ডিকা থেকে দেখতে সম্পূর্ণ আলাদা। এটির বর্তমান প্রজন্মকে বিভিন্ন নামে অভিহিত করা হয়, প্রথম প্রজন্মকে ডাকা হয় ইন্ডিগো সেডান (২০০২-২০০৯), ইন্ডিগো এক্সএল(২০০৭-বর্তমান), এবং ইন্ডিগো সিএস (২০০৮-বর্তমান)।

টাটা ইন্ডিগো রিভিউ

টাটা ইন্ডিগো ইঞ্জিন বিস্তারিত এবং পারফর্মেন্স

ইসিএস টাটা ইন্ডিগো ভার্শনটি ৩টি ইঞ্জিন থেকে বেছে নেয়া যায়, যদিও বাংলাদেশে কেবল ১১৯৩ সিসি এমপিএফআই পেট্রল ইঞ্জিন পাওয়া যায়। এটি কেবল ৬৫ হর্সপাওয়ার এবং ১০২ টর্ক উৎপাদন করে। ইঞ্জিনটি নতুন ৫-স্পিড গিয়ারবক্স এবং একটি রিভার্স গিয়ারের সঙ্গে সংযোজিত। প্রতি লিটার ডিজেলে এটি প্রায় ২৫ কিমি ভ্রমন করতে পারে শহর কিংবা হাইওয়েতে। এটি মাত্র ১৬.৫ সেকেন্ডে ঘন্টায় ১০০ কিমি গতি তুলতে সক্ষম। সবশেষে এটির সামনে আছে ভেন্টিলেটেড ডিস্ক ব্রেক এবং পেছনে আছে ড্রাম ব্রেক

টাটা ইন্ডিগো বাহিরের ডিজাইন

টাটা ইন্ডিগো ইসিএসের ডিজাইন বেশ নিরাপদ এবং পরিপক্ক। নতুন ইসিএসগুলো পেয়েছে নতুন আপমার্কেট ডাবল-ব্যারেল স্মোকড হেডল্যাম্প, ফ্রন্ট বাম্পার এবং ক্রোম স্ট্রিপ সহ একটি রিয়ার ক্রোম বাম্পার। আরো আছে কয়েল স্প্রিঙের সঙ্গে একটি উন্মুক্ত ম্যাকফারসন স্ট্রাট যা কিনা ফ্রন্ট সাস্পেনশনের কাজ করে এবং এন্টি-রোল বার সহ একটি মুক্ত ৩-লিঙ্ক ম্যাকফারসন স্ট্রাট। এটি ছয়টি উজ্জ্বল রঙে পাওয়া যায়, এমনকি লাল কিংবা ছাই রঙেও।

টাটা ইন্ডিগো অন্দরসাজ

টাটা ইন্ডিগো চার মিটারের কম লম্বা হওয়া সত্ত্বেও সব প্যাসেঞ্জারের জন্য যথেষ্ট পরিমানে হাত-পা ছড়িয়ে বসার মতন জায়গাওয়ালা কেবিন বহন করে। সামনের সিটগুলোর উচ্চতা ঠিক করে নেয়া যায়, বিশেষ করে চালকের জন্য এটি বেশ কাজের এবং আরামদায়ক। ভেতরে এর বেইজ রঙা ইন্সট্রুমেন্ট প্যানেল এবং নতুন আপহোলস্টারি কেবিনের ভেতর বাতাস প্রবাহ অনেক বাড়িয়ে দেয়। এর এরগোনোমিক্স অন্যান্য টাটা গাড়ির চাইতে অনেক বেশি উন্নত এবং দরকারি সকল বাটন চালকের হাতের নাগালেই থাকে। এটির বুট ৩৮০ লিটার বহন করতে সক্ষম, যা কিনা একটি সিএনজি সিলিন্ডার বসানোর পরেও ভারী লাগেজ বহন করতে পারবে।

টাটা ইন্ডিগো বৈশিষ্ট্য

উচ্চমানের ভ্যারিয়েন্ট মডেলগুলোতে সিডি/রেডিও এবং চারটি স্পিকার ও এইউএক্স, ইউএসবি ইনপুট আর ব্লুটুথ সহ মিউজিক সিস্টেম আছে। সুবিধার জন্য এটির চারটি পাওয়ার উইন্ডো আছে যার ড্রাইভারের সিটে অটো-ডাউন সিস্টেম আছে। টাটা ইন্ডিগোর সবচেয়ে অসাধারন বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এর রিভার্স পারকিং সেন্সর, যা একটি ব্যাক ক্যামেরার সাথে কাজ করে প্যারালেল পারকিং অনেক সহজ করে তোলে। সুরক্ষার জন্য এর আছে চাবি সহ সেন্ট্রাল লকিং, হাই মাউন্টেড স্টপ ল্যাম্প, পেছনের দরজাগুলোতে চাইল্ড সেফটি লক, কলাপ্সিবল স্টিয়ারিং এবং ড্রাইভারকে সংকেত দেয়া হয় যদি প্যাসেঞ্জারগন সিটবেল্ট না বাঁধেন।

বাংলাদেশে টাটা ইন্ডিগোর মূল্য

টাটা মোটরস বাংলাদেশে টাটার সব গাড়ির পরিবেশক, তাই আপনি নতুন টাটা ইন্ডিগো সহজেই পাবেন। বাংলাদেশে টাটা ইন্ডিগোর মূল্য ১৫লাখ টাকা থেকে শুরু হয়।

কেন আপনি টাটা ইন্ডিগো কিনবেন?

টাটা ইন্ডিগো ইসিএস আপনার হিসেবে নেয়া উচিত যদি আপনি স্বল্প দামে একটি কর্মঠ, কম্প্যাক্ট সেডান খুঁজে থাকেন। এটির চটকদার ও ফিটফাট অন্দরসাজ না থাকতে পারে, কিন্তু গাড়িটি উপমহাদেশের আবহাওয়ার জন্যই বিশেষ করে তৈরি। টাটা ইন্ডিগোর প্রতিদ্বন্দ্বী হচ্ছে হোন্ডা সিটি, হোন্ডা অ্যামেজ, টয়োটা করোলা, টয়োটা অ্যাক্সিও, এবং নিসান সানি। টাটা ইন্ডিগো নেয়া উচিত কারন  এর আছে:

  • বেশ ভাল জ্বালানী সাশ্রয়তা
  • ভাল হ্যান্ডলিং
  • চমৎকার নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য
  • মনোরম বাহির