: প্রস্তাবিত

BDT 730,000 মূল্য পরিবর্তনশীল

ঢাকা

Fardin Khan
  • 15,000 কিলোমিটার

wanna sell my Suzuki Vitarta JLX 96..Its in great condition Suv with a low range price.. All power..Auto transmission along with 7k Engine..Clean Interior...5 new tyres..Cng:80(40*2) Suspansion W...

ফলাফল হালনাগাদ করুন
বাংলাদেশে সুজুকি গাড়ি বিক্রয়

বাংলাদেশে সুজুকি গাড়ি বিক্রয়

সুজুকি মোটর কর্পোরেশন ১৯৩৭ সালে প্রতিষ্ঠিত একটি জাপানী গাড়ি নির্মাতা, যার সদর দপ্তর জাপানের মিনমি-কু, হামামাত্সুতে। এটা মোটরসাইকল, চার-চাকার ড্রাইভ যান, অল-টেরেইন যান (এটিভি), উইলচেয়ার, আউটবোর্ড মেরিন ইঞ্জিন, আর আরও অনেক ছোটখাটো ইন্টারনাল কম্বাসশন ইঞ্জিন নির্মান করে। উৎপাদনের দিক থেকে সুজুকি পৃথিবীর সেরা ১০টি গাড়ি নির্মাতার মধ্যে ১টা। বছরে সুজুকি প্রায় ২.৪ মিলিয়ন যান উৎপাদন করে। তাছাড়া, এটা জাপানের দ্বিতীয় বৃহত্তম ছোট গাড়ি আর ট্রাক নির্মাতা। এর গ্লোবাল নেটওয়ার্কে আছে ২৩টি দেশে ৩৫টি মূল উৎপাদন ফেসিলিটি, এবং ১৯২টি দেশে ১৩৩টি ডিস্ট্রিবিউটর। টয়োটা, নিসান আর হোন্ডার পাশাপাশি বাংলাদেশী বাজারে সুজুকি সবচেয়ে জনপ্রিয় জাপানী ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে একটি, আর ক্রেতারা সব সময়েই সুজুকি গাড়ি খোঁজেন।

সুজুকি গাড়ির পারফরমেন্স আর প্রযুক্তি

সুজুকি পৃথিবীর সবচেয়ে সফল গাড়ির ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে একটি হওয়াতে মোটরসাইকেল, কম্প্যাক্ট গাড়ি, ফোর-হুইল- ড্রাইভ আর মেরিন প্রযুক্তিতে মার্কেট লীডারের খ্যাতি অর্জন করে নিয়েছে। এই ব্র্যান্ড আপনাকে অন্যতম মান আর আপনার পয়সার বিনিময়ে সবচেয়ে ভালো সার্ভিসের প্রতিশ্রুতি দেয়। গত কিছু বছরে, তেলের দাম বাড়ার কারণে সারা পৃথিবীতে খুব সুস্পষ্টভাবে ছোট ফুয়েল এফিসিয়েন্ট গাড়ির প্রতি ঝুঁকে গিয়েছে। যেহেতু সুজুকি ফুয়েল এফিসিয়েন্ট গাড়ি নির্মানে অত্যন্ত দক্ষ, সম্প্রতি সুজুকির ব্যবসা অনেক উন্নতি লাভ করেছে। এটা ক্রেতাদের এনে দেয় স্মার্ট, ফুয়েল এফিসিয়েন্ট আর পরিবেশবান্ধব যান, একদম সাশ্রয়ী মূল্যে।

বাংলাদেশে সুজুকির জনপ্রিয় মডেলগুলো

বাংলাদেশে সুজুকির অনেকগুলো জনপ্রিয় মডেল আছে, কিন্তু সবচেয়ে জনপ্রিয় মডেলগুলো হলো: সুজুকি আল্টো, সুজুকি কাল্টাস আর সুজুকি সুইফ্ট

সুজুকি আল্টো

আল্টো একটি কম্প্যাক্ট ৫ দরজার হ্যাচবাক। এটার ছোট পরিবারদের জন্য উত্তম, যারা প্রতিদিনকার ব্যবহারের জন্য একটি সাশ্রয়ী গাড়ি খুঁজছেন। এটার ইকো- প্রযুক্তি পরিবেশ পরিষ্কার রাখার পাশাপাশি আপনাকে দেয় চমৎকার মাইলেজ। এটা বাংলাদেশের সবচেতে জনপ্রিয় গাড়িগুলোর মধ্যে একটি, আর এখানকার রাস্তায় এই গাড়ি অনেক দেখা যায়।

সুজুকি কাল্টাস

কাল্টাস একটি মিনি-গাড়ি, যেটা সুজুকি ১৯৮৩ সালে বাজারজাত করে। এটার অন্দর খুবই আরামদায়ক, কম্প্যাক্ট এবং ভালভাবে তৈরী করা। যারা একটি প্রশস্ত, নির্ভরযোগ্য আর সুন্দর মিনি গাড়ি খুঁজছেন, সেই সব বাংলাদেশী পরিবারদের মধ্যে এই মডেল খুব জনপ্রিয়।

সুজুকি সুইফ্ট

সুজুকি সুইফ্ট একটি সবকম্প্যাক্ট হ্যাচবাক, যার আছে স্পোর্টি লুক আর চমৎকার স্টাইল। এটা সৌন্দর্যের সাথে আপোষ না করে আপনাকে দেয় অসাধারণ পারফরমেন্স আর নিরাপত্তা। গাড়ির আরামদায়ক অন্দরে আছে সবচেয়ে আধুনিক প্রযুক্তি আর অনেক নিরাপত্তা ফীচার্স।

বাংলাদেশে অন্যান্য সুজুকি মডেলের মধ্যে আছে সুজুকি এরিও, সুজুকি লিয়ানা, সুজুকি ওয়াগন, সুজুকি ভিটারা ইত্যাদি।

বাংলাদেশে সুজুকি গাড়ির মূল্য আর উপলব্ধি

সুজুকি গাড়ি সহজেই বড় শহরগুলোতে উপলব্। পার্টস, লেবার আর ক্রয়ের পরের সার্ভিস অহরহই পাবেন। তাছাড়া, ব্যক্তিগত বিক্রেতা বা ডিলারদের কাছে নতুন মডেলও পাবেন নিজের সুবিধা মত।

নির্মান সাল, ফীচার্স আর সাধারণ অবস্থার ওপর নির্ভর করে কারমুডিতে অফার করা রিকন্ডিশন্ড এবং ব্যবহৃত/ সেকেন্ড হ্যান্ড গাড়ির মূল্য পড়তে পারে ৫,০০,০০০ টাকা থেকে ১৮,০০,০০০ টাকা পর্যন্ত। নিচে, কারমুডির লিস্টিং অনুযায়ী সুজুকি গাড়ির দাম দেয়া রইলো:

সুজুকি লিয়ানা মূল্য: ব্যবহৃত - ৯,৭০,০০০ টাকা

সুজুকি সুইফ্ট মূল্য : ব্যবহৃত - ৬,০০,০০০ থেকে ৮,০০,০০০ টাকা; রিকন্ডিশন্ড - ১৭,৫০,০০০ টাকা

সুজুকি ওয়াগন মূল্য: ব্যবহৃত - ৫,২০,০০০ থেকে ৯,০০,০০০ টাকা

সুজুকি ভিটারা মূল্য: ব্যবহৃত - ৭,৫০,০০০ থেকে ১০,০০,০০০ টাকা

সুজুকি গাড়ির ব্যাপারে মজার তথ্য

সুজুকি লুম কোম্পানি শুরু হয় ১৯০৯ সালে। তখন এই কোম্পানি সিল্ক আর সুতি বুননের জন্য লুম তৈরী করত। মিচিও সুজুকি চেয়েছিলেন আরও উন্নত, সহজে ব্যবহারযোগ্য লুম বানাতে আর ৩০ বছর ধরে উনি মনোযোগ দিয়েছেন এই অন্যতম জটিল যন্ত্রগুলি তৈরী করতে। ১৯৫৫ সালে এই কোম্পানি প্রথম গাড়ি বানানোর পরেও এটার অটোমোবাইল ডিভিশন ১৯৬১ সালের আগে শুরু হয়নি। আজকে সুজুকি পৃথিবীর সবচেয়ে বৃহৎ অটো নির্মাতাদের মধ্যে একটি, আর এশিয়ার বাজারে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি ব্র্যান্ড, যদিও দক্ষিন আমেরিকায় সুজুকি এখন আর গাড়ি বাজারজাত করে না।