: প্রস্তাবিত

BDT 275,000 মূল্য পরিবর্তনশীল

Bangladesh

Md Nuro
  • 155,000 কিলোমিটার

বহু বছর ধরে Maruti Suzuki ভাল মান বজায় রাখার জন্য পরিচিত এবং এই গাড়িটি তারই একটি সেরা উদাহরণ। এই Maruti Suzuki Wagon R ঘ 2005 গ গাড়িটির আছে Manual ট্রান্সমিশন সিস্টেম এবং অনন্য ফিচার। 155000 কিম...

ফলাফল হালনাগাদ করুন

বাংলাদেশে মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর বিক্রয়

বাংলাদেশে মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর বিক্রয়

বাংলাদেশে মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর বিক্রয়

মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর জাপানী কেইজিদষা (ছোট) গাড়ির লেবেল থেকে ইন্স্পায়ার্ড। এটা আন্তর্জাতিক অটোমোবাইল বাজারে একটা মাল্টি-পারপাস যান (এমপিভি) যেটা গঠনে একটি ওয়াগন। একটি কেইজিদষা গাড়ি কেই নামেও পরিচিত, কারণ এই গাড়ি জাপানী মার্কেট দ্বারা নির্ধারণ করা পরিবেশগত স্ট্যান্ডার্ড মেনে চলে। গাড়ির নামের মাঝের “আর” তার অর্থ “রিক্রিয়েশন”। এই গাড়ির আছে “টল ওয়াগন” ডিসাইন আর তার সাথে ছোট বনেট আর আপরাইট হ্যাচ। এটার ব্যতিক্রমী স্টাইলিং জাপানে খুব জনপ্রিয় আর গত দশকে এটাকে বেস্টসেলিং কেই গাড়ির খেতাব প্রদান করা হয়। এটার প্রাথমিক উৎপাদন শুরু হয় ১৯৯৩ সালে আর এখনো অনেক আগ্রহ নিয়ে উৎপাদিত হচ্ছে। বর্তমানে গাড়িটির ৫ম প্রজন্ম বাজারজাত করা হচ্ছে।

মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর রিভিউ

মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর ইঞ্জিন স্পেসিফিকেশন

মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর এর ৪টি ভিন্ন ভার্সন আছে: ভিএক্স আই, এলএক্সআই, আর এলএক্স। সবগুলোর ইঞ্জিন ৯৯৮ সিসি আর শুধু পেট্রল ভার্সনই উপলব্ধ। এই গাড়ির আছে সম্পূর্ণ অ্যালুমিনিয়াম লাইট কে১০৮ ১.০ লিটার (৯৮৮ সিসি) ইন-লাইন ৩ সিলিন্ডার, প্রত্যেকটি সিলিন্ডারে ৪টি ভাল্ভ সহ এই ইঞ্জিন এই সেগমেন্ট এর সবচেয়ে বেশি ফুয়েল এফিসিয়েন্ট ইঞ্জিন। শহুরে অবস্থায় এটার চমৎকার ফুয়েল কনসাম্পশন ২০.৫ কিলোমিটার/লিটার (কিমি/লি) আর এটার ফুয়েল ট্যান্ক ক্যাপাসিটি ৩৫ লিটার। এটার ইঞ্জিন উৎপাদন করে ৬৮ হর্সপাওয়ার আর ৯০ নিউটন মিটার টর্ক, আর গাড়িটা ফ্রন্ট ইঞ্জিন ফ্রন্ট উইল ড্রাইভ বা ফ্রন্ট ইঞ্জিন অল উইল ড্রাইভ ভার্সন এ উপলব্ধ। মহাসড়কে চালালে এই কেই গাড়ি ০ থেকে ১০০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা গতিতে পৌছাতে পারে ১৬ সেকেন্ড এ, আর এটার সর্বোচ্চ গতি প্রতি ঘন্টায় ১৫৫ কিলোমিটার।

মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর বাহিরের ডিসাইন

মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর এর বাহিরের ডিসাইনকে আকর্ষনীয় করে তোলে বেজেল দ্বারা ডিসাইন করা স্পোর্টি ফগ ল্যাম্প, রুফ রেল, নীল লেন্স যুক্ত হেডল্যাম্প, আর ক্রোম দিয়ে তৈরী সুজুকির লোগো কালো গ্রিলের ওপর। এটার আছে ম্যাকফার্সন স্ট্রাট সহ কয়েল স্প্রিং ফ্রন্ট সাসপেনশন আর রিয়ার ট্রেডে কয়েল স্প্রিং যুক্ত আলাদা ট্রেইলিং লিংক আর বডি-অন-ফ্রেম গঠন। এটার পেছনের হ্যাচবাক সুজুকি ওয়াগন আর এর কার্ব ওজন কমিয়ে দেয় আর ফুয়েল ইকোনমি বাড়িয়ে দেয়।

মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর অন্দরের ডিসাইন

মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর এর আকার ছোট হলেও, ভেতরে লেগরুম আর বুট স্পেস আছে যথেষ্ট। এটার রিট্রাকটেবল সীট আপনাকে দেয় আরামদায়ক বসার ব্যবস্থা আর প্রয়োজন হলে পেছনের দিকে আরও বেশি জায়গা। এটার এরগোনমিক কেবিন অনেক রকম সুবিধায় ভরপুর, যেমন ডুয়াল টোন ফ্যাব্রিক, লাম্বার সাপোর্ট সহ হেলান দেয়ানো পেছনের সীট, একটি দিন/রাত ভেতরের রিয়ার ভিউ আয়না, ম্যানুয়াল শীতাতাপ নিয়ন্ত্রণ, ইন-ড্যাশ সিডি/এমপি৩ প্লেয়ার আর ট্রিপ মিটার সহ একটা ডায়াল টাইপ ইনস্ট্রুমেন্ট প্যানেল।

মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর নিরাপত্তা ফীচার্স

ওয়াগন আর এ অনেক ভালো ভালো নিরাপত্তা ও সিকিউরিটি ফীচার্স আছে যেমন চালক-সাইড এয়ারব্যাগ (চাহিদা অনুযায়ী), পিচ্ছিল রাস্তায় ভালো হ্যান্ডলিং এর জন্য এন্টি-লক ব্রেকিং সিস্টেম (এবিএস), ড্রাইভার সীট বেল্ট ইনডিকেটর, আর সিকিউরিটি এলার্ম সহ সেন্ট্রাল লকিং।

বাংলাদেশে মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর এর মূল্য

বাংলাদেশে, নতুন আর ব্যবহৃত বা সেকেন্ড হ্যান্ড মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর এর মূল্য শুরু হয় ৫,০০,০০০ টাকা থেকে। মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর এর প্রত্যাশিত মূল্য নিচে দেয়া রইলো। দামগুলো কারমুডির বর্তমান লিস্টিং এর ওপর নির্ভর করে দেয়া আছে আর সময়ের সাথে বদলাতে পারে

মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর ২০১০ মূল্য: ব্যবহৃত - ৫,৮০,০০০ টাকা    

মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর ২০০৯ মূল্য: ব্যবহৃত - ৫,৫০,০০০ টাকা

মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর ২০০৭ মূল্য: ব্যবহৃত - ৫,০০,০০০ টাকা

কেন কিনবেন মারুতি সুজুকি ওয়াগন আর?

সুজুকি ওয়াগন এর স্পেয়ার পার্টস বাংলাদেশের সব জায়গায় সহজেই উপলব্ধ, আর এই মডেলের গাড়ি ব্যবহৃত বা সেকেন্ড হ্যান্ড বাজারে মেইনটেইন করা সহজ। এই গাড়িতে ৫ জন মানুষ বসতে পারে। লোকাল বাজারে এর প্রতিদ্বন্দ্বীদের মধ্যে আছে হ্যুন্দাই ইওন, মিত্সুবিশি কোল্ট, নিসান মার্চ আর কিয়া পিকান্ত সাধারণত, ছোট পরিবার, যারা সাশ্রয়ী যাত্রীবাহী গাড়ি খুঁজছেন, তারা সুজুকি ওয়াগন পছন্দ করবেন কারণ এর আছে:

  • মাইলেজ ভালো
  • আরামদায়ক অন্দর
  • মেইনটেইনেন্স সহজ
  • শহুরে অবস্থায় চালানো যায়