: প্রস্তাবিত
সঠিক ফলাফল পাওয়া প্রস্তাবিত বিকল্প
ফলাফল হালনাগাদ করুন
বাংলাদেশে হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট বিক্রয়

বাংলাদেশে হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট বিক্রয়

হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট একটি সাবকম্প্যাক্ট সেডান যেটা হ্যুন্দাই গ্রান্ড আই১০ এর ওপর নির্ভর করে নির্মিত।  এটা ভারতীয় উপমহাদেশের জন্য বিশেষ ভাবে তৈরি করা। হ্যুন্দাই মোটর কোম্পানি এক্সসেন্ট কে সর্বসাধারণের সামনে নিয়ে আসে অটো এক্সপো তে এর বিশ্ব প্রিমিয়ার এ, ফেব্রুয়ারী ২০১৪ তে। মার্কেটে এটা মানুষের নজর কেড়ে নেয় এটার নতুন ডিসাইন আর ফীচার্সে ভরপুর কেবিন দিয়ে।

হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট রিভিউ

হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট স্পেসিফিকেশন আর রিভিউ

ভারতে হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট ৫টি ভিন্ন ডিজেল আর পেট্রল ট্রিমে উপলব্ধ যেগুলোর নাম হচ্ছে এস্টা, এরা, ম্যাগনা, আর স্পোর্টজ। এটার পেট্রল ভার্সনকে পাওয়ার করে ১.২ লিটার কাপ্পা২ ইঞ্জিন যেটার সর্বোচ্চ ইঞ্জিনশক্তি ৮১ হর্সপাওয়ার আর টর্ক ১১৫ নিউটন মিটার। এটার ডিজেল ভ্যারিয়েন্টের ইঞ্জিন ১.১ লিটার ইউ২ সিআরডিআই ইঞ্জিন যার সর্বোচ্চ ইঞ্জিনশক্তি ৭১ হর্সপাওয়ার আর টর্ক ১৬০ নিউটন মিটার। এর আরেকটি শক্তিশালী ভ্যারিয়েন্ট আছে যেটার ইঞ্জিন সেই ১.৪ লিটার সিআরডিআই ইঞ্জিন, সাথে ৩টি সিলিন্ডার। এই গাড়ির আছে পেট্রল আর ডিজেল, ২টি ভেরিয়েশনেই আছে ৫ স্পিড ম্যানুয়াল গিয়ার্বক্স। আর শুধু পেট্রল ইঞ্জিনে আছে ৪ স্পিড অটোমেটিক গিয়ার্বক্স। এক্সসেন্ট ১.১ লিটার (প্রায় ১০৯৩ সিসি) ইঞ্জিন এর সর্বোচ্চ গতি ১৬০ কিমি/ঘন্টা। এটার ফুয়েল ট্যাঙ্ক এর ধারণ ক্ষমতা ৪৩ লিটার। আর সবচেয়ে আকর্ষণীয় ব্যাপার হচ্ছে এক্সসেন্টকে একটি “গ্রীন কার” বলা যেতে পারে। আর হ্যুন্দাই এর দাবি যে নতুন এক্সসেন্টের পেট্রল ভার্সনে আপনি ফুয়েল এফিসিয়েন্সি পাবেন ১৯.১ কিলোমিটার প্রতি লিটার আর ডিজেল ইঞ্জিন এ ফুয়েল এফিসিয়েন্সি পাবেন ২৪.৪ কিমি/লিটার।

হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট বাহিরের ডিসাইন

এক্সসেন্ট এর ডিসাইন সি-পিলার পর্যন্ত গ্রান্ড আই১০ এর মত। এটার এগ্রেসিভ ফ্রন্ট ফেসিয়াতে আছে ষড়্ভুজাকার গ্রিল এর ভেতরের অংশে ক্রোম পাইপিং। বেশিরভাগ এন্ট্রি লেভেলের সেডানই নিজেদের হ্যাচব্যাক ভার্সন এর স্পিন-অফ, আর তাই মাঝেমধ্যে তাদের বাইরের ডিসাইনটা হয়ে যায় কিছুটা বোরিং। কিন্তু সেই কথা হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট এর বেলায় খাটে না। এটার ডিসাইন চমৎকার আর সুসমন্বিত। এটার সরল সমচতুর্ভুজ টেইল ল্যাম্প একক আর সেটা আপনাকে হ্যুন্দাই গ্রান্ড আই১০ এর কথা মনে করিয়ে দেবে। এই গাড়িটি বেশ কয়েকটি রঙ্গে উপলব্ধ: কালো, নীল, প্যাশন রেড, রুপালি, টোয়াইলাইট ব্লু  আর সাদা।

হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট ভেতরের ডিসাইন

হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট ভেতরে ৫ জন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ বসতে পারবে। এটার কালার থিম কালো আর বেইজ এর ডুয়াল কালার স্কিম। সীটিং ব্যবস্থা অনেক ভালো। সামনের সীটগুলো প্রশস্ত আর সুন্দর আকারের। এটার চালকের সীট হাইট এডযাসটেবল আর আর কয়েকটি ট্রিমে স্টিয়ারিং ইউলের টিল্টও এডজাস্ট করা যায়, যেন চালক সবচেয়ে আরামদায়ক অবস্থানে বসে গাড়ি চালাতে পারে। হ্যুন্দাই এর প্রকৌশলী দল পেছনের সীটের দিকে বিশেষ লক্ষ্য রেখেছেন। এগুলোকে আরেকটু পেছনে ঠেলে দেয়া যায় যেন পা রাখবার জায়গা বাড়ে। এটার বুট স্পেস ৪০৭ লিটার।

হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট ফীচার্স

ক্রেতাদের পচ্ছন্দ মাথায় রেখে, হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট এ যোগ করা হয়েছে অসংখ্য ফীচার্স। এই সব ফীচার্স এর মধ্যে আছে ১ জিবি হার্ড ড্রাইভ, পেছনে এসি ভেন্ট, আর কুল্ড গ্লোভবক্স। অন্যান্য লক্ষ্যনীয় ফীচার্স এর মধ্যে আছে এবিএস, ডুয়াল ফ্রন্ট এয়ারব্যাগ, ব্লুটুথ কানেকশন, পুশ বাটন স্টার্ট, ফগ ল্যাম্প, ইনটেগ্রেটেড মিউসিক সিস্টেম সহ স্টিয়ারিং মাউন্টেড অডিও কন্ট্রোল আর টার্ন ইন্ডিকেটর সহ ইলেকট্রিক রিয়ার ভিউ আয়না।

বাংলাদেশে হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট মূল্য

বাংলাদেশে আপনি নতুন বা রিকন্ডিশন্ড হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট পেতে পারেন। নিচে এর মূল্য তালিকা দেয়া রইলো:

হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট ২০১৫ মূল্য: নতুন/রিকন্ডিশন্ড- ১৭,৫০,০০০ টাকা

কারমুডির সাহায্যে আপনার শহরে ক্রয়ের জন্য উপলব্ধ হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট খুঁজে নিন:

কেন কিনবেন হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট?

বাজারে হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট প্রতিযোগিতা করে অন্যান্য সাবকম্প্যাক্ট লীডারদের সাথে, যেমন মারুতি সুইফ্ট দিজিরে, হোন্ডা জ্যাজ, টাটা জেস্ট আর হোন্ডা আমেইজ। হ্যুন্দাই এক্সসেন্ট কিনতে পারেন যদি আপনি চান:

  • ভালো প্রশস্ত অন্দর
  • ভালো ম্যাটেরিয়াল দিয়ে গড়া অন্দর
  • সুলভ ফুয়েল ইকনমি
  • কম্প্যাক্ট আকারের গাড়ি